সেই বিন্দু এই বিন্দু

বিনোদন

চাইলেই বারবার ফিরে আসা যায়। তাঁর প্রমাণ দিয়েছেন এক সময়ের নন্দিত মডেল-অভিনেত্রী আফসান আরা বিন্দু। চেনা পথের বাঁকে যেন পথ চলতে ভালোবাসেন তিনি। এ কারণেই দীর্ঘ আট বছর পর আবারও ক্যামেরার সামনে দাঁড়ালেন তিনি। হঠাৎ করে তাঁর আবার আগমন যেন নতুন কিছু নিয়ে এলো। এবার অভিনয় করছেন নতুন সিনেমায়। পাঠক, ইতোমধ্যে জেনে গেছেন বিন্দু অভিনীত সিনেমার নাম ‘উনিশ ২০’। ছোট পর্দার তারকা নির্মাতা মিজানুর রহমান আরিয়ানের এ সিনেমা দিয়ে বিরতি ভেঙে যেন নতুন করে এলেন সুহাসিনী। তাঁর ক্যারিয়ার গ্রাফের পারদ যখন তুঙ্গে তখন বিয়ে করে শোবিজ ছেড়ে একেবারে সংসারী হয়েছিলেন বিন্দু। মিডিয়ার কোনো অনুষ্ঠানেও দেখা যাচ্ছিল না তাঁকে। সরব ছিলেন না সামাজিকমাধ্যমেও।

বলা যায়, খুব কম সময়ের নোটিশে হুট করেই ক্যামেরার সামনে দাঁড়ান তিনি। বহু বছর পর ক্যামেরার সামনে এলেন। কেমন লাগছে? উত্তরটা হেসে দিয়ে বলেন, ‘বিনোদনের এই ভুবন আমার চিরচেনা। আমার নিজের। তাইতো নিজের জায়গায় যে কোনো সময়ে আসা যায়। এটি সত্য, অভিনয়ে মাঝে লম্বা এক বিরতি ছিল। শুটিংয়ে এসে নির্মাতা, শিল্পী, কলাকুশলীদের কাছ থেকে যে ভালোবাসা পেয়েছি তাতে আপ্লুত। পুরোনো অনেক সহকর্মীর সঙ্গে দেখা হচ্ছে। অনেক সাংবাদিকই আমাকে সিনেমায় কাজের অভিজ্ঞতার ব্যাপারে জানতে চেয়েছেন। কনটেন্টের গল্প নিয়ে এখন এ বিষয়ে কিছু বলতে চাচ্ছি না। সিনেমার কাজ শেষ হলেই বিস্তারিত জানাব। শুধু একটুকু বলতে পারি, নতুন এক বিন্দু আপনাদের সামনে হাজির হবেন।’

‘উনিশ ২০’ সিনেমায় বিন্দুর সহশিল্পী আরিফিন শুভ। তাঁরা দু’জন প্রথমে খিজির হায়াত খানের ‘জাগো’ সিনেমায় অভিনয় করেন। এরপর অনেক নাটক ও টেলিছবিতে অভিনয় করেছেন তাঁরা। বিন্দু সম্পর্কে আরিফিন শুভ বলেন, ‘এক কথায় বলতে গেলে, বিন্দু দারুণ একজন অভিনেত্রী। সময়ের পরীক্ষায় সে উত্তীর্ণ। ক্যারিয়ারে তার সঙ্গে অনেক কাজ হয়েছে। দীর্ঘ বিরতির পর আবারও আমি আর বিন্দু কাজ করছি। কাজের ফাঁকে আড্ডা দিচ্ছি। মনেই হচ্ছে না, অনেকদিন পর আমরা দুইজন একসঙ্গে কাজ করছি। অনেক মাস্তি নিয়ে কাজটি করছি। আশা করছি, নতুন সিনেমায় আমাদের রসায়ন জমবে।’

নতুন সিনেমায় অভিনয়ের জন্য বিন্দু নিজেকে এক বছর ধরে প্রস্তুত করছেন। রাজধানীর একটি ফিটনেস সেন্টারে নিয়মিত যাতায়াত করেছেন। অভিনয়ে ফেরার প্রস্তুতি হিসেবেই নিজেকে তৈরি করছেন বিন্দু- এমন কথা বলছিলেন অনেকেই। তখন সে সম্ভাবনার কথা একেবারেই উড়িয়ে দিয়েছেন এই অভিনেত্রী। বিষয়টি যাতে গোপন থাকে, সে কারণে বিন্দু গণমাধ্যমের সঙ্গে দূরত্ব রেখে চলছেন। সিনেমায় কাজ করার বিষয়টি সুকৌশলে এড়িয়ে গেছেন। আদৌ বিন্দু অভিনয়ে ফিরবেন কিনা তাও নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছিল না। সামাজিক কোনো অনুষ্ঠানেও হাজির হতেন না। অবশেষে বছরের শেষ দিকে অভিনয়ে ফেরার কথা জানানেল বিন্দু। ওটিটি প্ল্যাটফর্মের জন্য নির্মিতব্য ৯০ মিনিটের এই সিনেমাটি আসছে ভালোবাসা দিবসে মুক্তি পেতে যাচ্ছে।

অভিনয়ে নিয়মিত হবেন কিনা? এমন প্রশ্নে বিন্দু কিছুটা রহস্য জিইয়ে রাখেন। তিনি বলেন, ‘অভিনয় দিয়ে মনের তৃষ্ণা মেটাতে চাই। সেরকম গল্প ও চরিত্র পাচ্ছিলাম না বলেই লাইট-ক্যামেরা-অ্যাকশনের ভুবন থেকে দূরে ছিলাম। দর্শক পর্দায় ভালো কিছু দেখতে চান। কারণ, তাঁরা দিনশেষে বিন্দুর কাছ থেকে সুঅভিনয় আশা করেন। তাঁরা আমাকে ভালোবাসেন বলেই এত বছর পরও আমাকে খুঁজছেন। আর নিয়মিত হব কিনা, তা নির্ভর করবে সময়ের ওপর।’
২০০৬ সালে লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার প্রতিযোগিতায় শীর্ষস্থান দখল করতে না পারলেও প্রথম রানারআপ হন বিন্দু।

সুন্দরী প্রতিযোগিতার মুকুট জয়ের পরে সবার নজরে চলে আসেন তিনি। হুমায়ূন আহমেদের গল্প ও তৌকীর আহমেদের পরিচালনায় ‘দারুচিনিদ্বীপ’ সিনেমায় অনবদ্য অভিনয় করেন তিনি। আর পিছু ফিরে তাকাতে হয়নি। এরপর তাঁকে দেখা গেছে পি এ কাজলের পরিচালনায় ‘পিরিতের আগুন জ্বলে দ্বিগুণ’ ও খিজির হায়াত খানের ‘জাগো’ ও সোহেল আরমানের ‘এইতো প্রেম’ সিনেমায়। অভিনয় ক্যারিয়ারে বহু নাটক ও টেলিছবি এবং কয়েকটি দর্শকনন্দিত সিনেমায় অভিনয় করেছেন বিন্দু। তাইতো আবারও তিনি মিডিয়ায় ব্যস্ত হবেন- এমন আশাবাদ তাঁর ভক্তদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *