ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের হেসেখেলে হারাল রংপুর

Uncategorized

২০২৩ বিপিএলের শুরুটা দারুণ করেছে রংপুর রাইডার্স। মিরপুরে দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে ৩৪ রানে হারিয়েছে রংপুর।  

১৭৭ রানের লক্ষ্যে নামা কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের হয়ে ওপেনিং করেন লিটন দাস ও সৈকত আলী। ভালো শুরুর আভাস দিয়েও ইনিংস বড় করতে পারেননি লিটন দাস। চতুর্থ ওভারের তৃতীয় বলে ড্রেসিংরুমের পথ ধরেন ১২ বলে ১০ রান করা লিটন। রাকিবুল হাসানকে কাট করতে গিয়ে ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে হাসান মাহমুদের হাতে ধরা পড়েন লিটন। কুমিল্লার স্কোর তখন ১ উইকেটে ২৫ রান। 

লিটনের বিদায়ের পর ব্যাটিংয়ে নামেন ডেভিড মালান। এসেই রাকিবুলকে ছক্কা হাঁকান ইংলিশ এই ব্যাটার। ঝোড়ো শুরু করলেও বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে পারেননি মালান। ৯ বলে ১৭ রান করা ইংলিশ বাঁহাতি ব্যাটারের উইকেট তুলে নেন সিকান্দার রাজা। মালানের পর সৈকত আলীকেও দ্রুত ড্রেসিংরুমের পথ দেখান রাজা। 

মালান, সৈকত আলীর দ্রুত বিদায়ে কুমিল্লার স্কোর দাঁড়ায়  ৭.৪ ওভারে ৩ উইকেটে ৫৭ রান। ৪র্থ উইকেট জুটিতে হাল ধরেন ইমরুল কায়েস ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। ৪৩ বলে ৫৮ রানের জুটি গড়েন ইমরুল ও সৈকত। ২৩ বলে ৪ চার ও ১ ছক্কায় ৩৫ রান করেন ইমরুল। কুমিল্লার অধিনায়কের উইকেট তুলে নেন আজমতউল্লাহ ওমরজাই। এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। ১৯.১ ওভারে ১৪২ রানে অলআউট হয়ে যায় কুমিল্লা। সর্বোচ্চ ৩৫ রান আসে ইমরুলের ব্যাট থেকে। রংপুর বোলারদের মধ্যে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নিয়েছেন হাসান মাহমুদ। ৩.১ ওভার বোলিং করে ২০ রান খরচ করেন এই পেসার। 

ম্যাচসেরা হয়েছেন রনি তালুকদার। ৩১ বলের এই ইনিংসে ১১ চার ও ১ ছক্কায় ৬৭ রানের ইনিংস খেলেন রনি। ১৯ বলে ফিফটি পেয়েছেন এই ওপেনিং ব্যাটার।

এর আগে টস হেরে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ পায় রংপুর। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ১৭৬ রান করে রংপুর। ইনিংস সর্বোচ্চ ৬৭ রান আসে রনির ব্যাট থেকে। কুমিল্লার বোলারদের মধ্যে ১টি করে উইকেট নিয়েছেন মোস্তাফিজুর রহমান, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, খুশদিল শাহ ও ফজলহক ফারুকি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *