বিন্দুর ফেরার গল্পে সঙ্গী শুভ

বিনোদন

প্রায় ৯ বছর ক্যামেরা থেকে দূরে ছিলেন অভিনেত্রী আফসান আরা বিন্দু। ২০১৪ সালের অক্টোবরে বিয়ে করেন তিনি। তারও ৯ মাস আগে থেকে বন্ধ রেখেছিলেন শুটিং। সে হিসাবে প্রায় এক দশকের বিরতি। এই দীর্ঘ সময়ে মিডিয়ার কোনো অনুষ্ঠানে পাওয়া যায়নি বিন্দুকে। তবে কিছু সহকর্মীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা তাঁর বরাবরই ছিল। পরিচালক মিজানুর রহমান আরিয়ান তাঁদের একজন। বিন্দুকে আরিয়ান জানিয়ে রেখেছিলেন, তাঁকে নিয়ে কাজ করতে চান। কিন্তু অভিনয়ে ফেরার বিষয়ে বিন্দুর আগ্রহ তখনো ছিল না।

অবশেষে গত বছরের শেষ দিকে বিন্দুর কাছ থেকে সবুজসংকেত পান আরিয়ান। নির্মাতা বলছেন, ‘উনিশ ২০ সিনেমার গল্প শোনাই বিন্দুকে। বলি, গল্পটা নিয়ে কাজ করতে চাই। তিনি বললেন, “এমন গল্প দিয়েই ফিরতে চেয়েছিলাম।” আরিফিন শুভ আগে থেকেই চূড়ান্ত ছিলেন।’

শুভর সঙ্গে ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে বেশ কিছু নাটকে জুটি হয়ে অভিনয় করেছিলেন বিন্দু। এর মধ্যে আছে ‘অনাকাঙ্ক্ষিত’, ‘ভালোবাসি তাই’, ‘বিভ্রান্ত’, ‘তবুও ভালোবাসি’, ‘দুটি ঘাস ফড়িং ও একটি মৃত্যু’র মতো জনপ্রিয় কাজ। সহশিল্পী হিসেবে শুভর সঙ্গে আগে থেকেই ভালো সম্পর্ক বিন্দুর।

তখনো সংশয়ে ছিলেন নির্মাতা মিজানুর রহমান আরিয়ান। অভিনয়ে ফেরার বিষয়ে বিন্দু কতখানি সিরিয়াস—সেটা বুঝতে অপেক্ষা করতে হয় ডিসেম্বর পর্যন্ত। ডিসেম্বরে শিল্পীদের নিয়ে শুরু হয় সাত দিনের রিহার্সেল। আরিয়ান বলেন, ‘রিহার্সেলে তো বিন্দু আমার চেয়েও সিরিয়াস! চিত্রনাট্যের প্রতিটি মুহূর্ত, সংলাপ খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে বুঝে নিয়েছেন তিনি। নিয়মিত রিহার্সেলে সময় দিয়েছেন। প্রি-প্রোডাকশন থেকে শুটিংয়ের শেষ দিন পর্যন্ত অসাধারণ এফোর্ট দিয়েছেন।’

যাঁকে নিয়ে এত কথা, সেই বিন্দু তেমন কিছু বলতে চাইলেন না কাজটি নিয়ে। জানালেন, এত বছর পর অভিনয়ে, দর্শক প্রতিক্রিয়া কেমন হবে, সেটা নিয়ে বেশ নার্ভাস তিনি। ‘উনিশ ২০’ মুক্তির পর সব প্রশ্নের উত্তর দেবেন বিন্দু। শুধু এটুকু বললেন, ‘এত বছর পর ক্যামেরার সামনে এসে নিজেকে সদ্যোজাত শিল্পী মনে হয়েছে। তবে পরিচালক, সহশিল্পী থেকে শুরু করে শুটিংয়ের সবার যে ভালোবাসা পেয়েছি, তাতে আমি আপ্লুত।’

আরিফিন শুভ বলেন, ‘সিনেমাটি নিয়ে প্রত্যাশা তো আছেই। আপাতত চাই মানুষ সিনেমাটা দেখুক। দর্শকের অনুভূতি কী, জানার জন্য মুখিয়ে আছি।’ আরিফিন শুভ যেকোনো কাজের আগে দীর্ঘ প্রস্তুতি নেন। ‘উনিশ ২০’ সিনেমার জন্য প্রস্তুতির অতটা সময় পাননি। তবে অপু চরিত্রের জন্য তিনি অনেক খেটেছেন।

‘উনিশ ২০’ তৈরি হয়েছে দুজন বিপরীত স্বভাবের মানুষের ভালোবাসার গল্প নিয়ে। এ সিনেমার ট্যাগলাইন তাই ‘সম্পর্কে নয়, কিছু প্রেম বিচ্ছেদে জন্মায়।’

রোমান্টিক গল্পের নির্মাতা হিসেবে আরিয়ানের খ্যাতি আছে। তবে এ সিনেমায় তিনি এমন গল্প বলতে চেয়েছেন, যা মানুষের মন ভালো করে দেবে। কতটা মন ভালো করতে পারছেন শুভ-বিন্দু, সেটা জানা যাবে আজই। ওটিটি প্ল্যাটফর্ম চরকিতে আজ রাত ৮টায় মুক্তি পাবে সিনেমাটি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *