জিনজিয়াং ও তিব্বতের আকাশে যুক্তরাষ্ট্রের বেলুন, অভিযোগ চীনের

আন্তর্জাতিক

চীনের জিনজিয়াং ও তিব্বতের আকাশে যুক্তরাষ্ট্র ‘সন্দেহজনক’ বেলুন ওড়াচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে বেইজিং। যুক্তরাষ্ট্র যদি চীনের সার্বভৌমত্ব ক্ষুণ্ন করার চেষ্টা করে, তবে পাল্টা ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকিও দিয়েছে দেশটি। বার্তা সংস্থা রয়টার্স আজ বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানিয়েছে।

গতকাল বুধবার চীনের জিনজিয়াং ও তিব্বত অঞ্চলের আকাশে ‘সন্দেহজনক’ বেলুন শনাক্ত করেছে চীন। এর আগে চীনের কিংডাও বন্দর এলাকায়ও সন্দেহজনক বস্তু উড়তে দেখা গিয়েছিল। দুই দিন আগে চীন অভিযোগ করে বলেছে, ২০২২ সালের মে মাস থেকে চীনের আকাশে ১০ বারের বেশি বেলুন পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে চীনের এসব দাবি ‘মিথ্যা’ বলে উড়িয়ে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। 

দুই সপ্তাহ আগে যুক্তরাষ্ট্রের মন্টানা, আলাস্কা ও লাতিন আমেরিকার আকাশে সন্দেহজনক বেলুন শনাক্ত করেছিল যুক্তরাষ্ট্র। হোয়াইট হাউসের অভিযোগ, চীন এসব বেলুন উড়িয়েছে। সাম্প্রতিক বেলুনকাণ্ডে দুই দেশের কূটনৈতিক সম্পর্কের অবনতি হয়েছে। 

ওয়াশিংটন সম্প্রতি চীনের নজরদারি বেলুন প্রোগ্রামের সঙ্গে জড়িত ছয়টি চীনা সংস্থাকে কালো তালিকাভুক্ত করেছে। 

এ ঘটনার পর চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মুখপাত্র ওয়াং ওয়েনবিং তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। তিনি গতকাল এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র অতিরিক্ত প্রতিক্রিয়া দেখাচ্ছে। তারা শক্তির অপব্যবহার করছে। যুক্তরাষ্ট্র অবৈধভাবে চীনা কোম্পানিগুলোর ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। 

চীনের সার্বভৌমত্ব ও নিরাপত্তার ওপর যুক্তরাষ্ট্র আঘাত হানলে চীন অবশ্যই পাল্টা ব্যবস্থা নেবে বলেও হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন ওয়াং ওয়েনবিং। 

তবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, তিনি বিশ্বাস করেন না যে সাম্প্রতিক বেলুনকাণ্ডে দুই দেশের সম্পর্ক দুর্বল হয়েছে। 

সন্দেহজনক বেলুনের জেরে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন তাঁর পূর্বনির্ধারিত বেইজিং সফর স্থগিত করেছেন। তবে একটি সূত্র রয়টার্সকে জানিয়েছে, এ সপ্তাহে জার্মানির মিউনিখে ওয়াং ওয়েনবিংয়ের সঙ্গে ব্লিনকেন সাক্ষাৎ করবেন বলে জানা গেছে। 

যুক্তরাষ্ট্রের উপপররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়েন্ডি শেরম্যান গতকাল বলেছেন, চীনের সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ হয়নি। তবে ভবিষ্যতে চীনের সঙ্গে উচ্চপর্যায়ের কোনো বৈঠক হবে কি না, সে ব্যাপারে বিস্তারিত কিছু বলেননি তিনি। শেরম্যান আরও বলেছেন, চীনের আকাশে যুক্তরাষ্ট্রের বেলুন বলে সম্প্রতি চীন যে দাবি করেছে, তা সর্বৈব মিথ্যা। চীনের আকাশে যুক্তরাষ্ট্রের কোনো বেলুন নেই। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *