বাংলাদেশকে সাঁতারের কোচ দেবে ফিনা

ক্রীড়া জগত

তৃণমূল থেকে প্রতিভাবান ক্রীড়াবিদ বের করে আনার লক্ষ্যে শেখ কামাল ২য় যুব গেমসের আয়োজন। ৪ হাজার ক্রীড়াবিদের এ মিলনমেলায় অতিথি হয়ে আসেন বিশ্ব সাঁতার সংস্থার সভাপতি হুসেইন আল মুসাল্লাম এবং আন্তর্জাতিক কাবাডি ফেডারেশনের সভাপতি বিনোদ কুমার তিওয়ারি। তাঁদের ঢাকায় আগমনে যুব গেমসের আকর্ষণটা আরও বেড়েছে বলে মনে করছেন বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের কর্তারা। বাংলাদেশে এসে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন দুই অতিথি। 

শুক্রবার নৌবাহিনীর সুইমিং পুলে যুব গেমস সাঁতার প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে সাঁতারের মানোন্নয়নে বাংলাদেশের পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দেন মুসাল্লাম, ‘আমি আপনাদের নিশ্চয়তা দিতে চাই, বিশ্ব সাঁতার সংস্থা থেকে বাংলাদেশ সুইমিং ফেডারেশন সভাপতি এবং বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনকে সব ধরনের সহায়তা দেওয়া হবে, যাতে করে বাংলাদেশ সাঁতার, ডাইভিং এবং অন্যান টেকনিক্যাল দিকসমূহে উন্নতি করতে পারে।’

অর্থের অভাবে সাঁতারে ভালো মানের কোচ বেশি দিন রাখতে পারে না বাংলাদেশ সাঁতার ফেডারেশন। তাই সম্ভাবনাময় প্রতিভা উঠে এলেও সঠিক ট্রেনিংয়ের অভাবে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ভালো করতে পারছেন না দেশের সাঁতারুরা। এবার অন্তত কোচের সমস্যা দূর হবে। সাঁতারের জন্য বাংলাদেশকে কোচ দেবেন বলে গতকাল জানান বিশ্ব সাঁতার সংস্থার সভাপতি আল মুসাল্লাম, ‘এসব ক্ষেত্রে আমাদের বিভিন্ন রকমের কার্যক্রম রয়েছে। তিন ধাপের কার্যক্রম আমরা নিয়ে থাকি। প্রথম ধাপে, তৃণমূল থেকেই শুরু করা হলে একেবারে শিশু যারা রয়েছে, তাদের জন্য সাঁতার শেখার সুযোগ তৈরি হবে। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশকে আর্থিক ও কারিগরি দিক থেকে সহায়তা দেওয়ার জন্য বিশ্ব সাঁতার সংস্থা প্রস্তুত রয়েছে। দ্বিতীয় ধাপে, সাঁতারুদের মানোন্নয়নের চেষ্টা করা যায়। এ ক্ষেত্রে শিগগিরই উন্নত মানের কোচদের বাংলাদেশে আট সপ্তাহের জন্য পাঠাব, যাঁরা স্থানীয় কোচদের প্রশিক্ষণ দেবেন। এ ছাড়া তৃতীয় পর্যায়ে, স্থানীয় কোচ ও রেফারিদের মধ্য থেকে কয়েকজনকে বাছাই করে উন্নত প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করব।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *