তেজগাঁও স্টেশনে মোহনগঞ্জ এক্সপ্রেস ট্রেনে আগুন, নিহত ৪

বাংলাদেশ ব্রেকিং নিউজ

রাজধানীর তেজগাঁও রেল স্টেশনে ঢাকা-নেত্রকোনা রুটে চলাচল করা মোহনগঞ্জ এক্সপ্রেসের তিনটি বগিতে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এতে দগ্ধ হয়ে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। নিহতদের মধ্যে নারী ও শিশু রয়েছে। আজ মঙ্গলবার আনুমানিক ভোর ৫টার দিকে ট্রেনটিতে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। 

মোহনগঞ্জ ট্রেনে আগুন দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স সদর দপ্তরের মিডিয়া সেল কর্মকর্তা শাহজাহান শিকদার।  
শাহজাহান শিকদার বলেন, ‘আনুমানিক ভোর ৫টায় তেজগাঁও রেলওয়ে স্টেশনে অগ্নি সন্ত্রাসীরা এক্সপ্রেস ট্রেনের ৩টি বগিতে আগুন দেয়। একটি বগি থেকে ৪ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। বাকি দুটি বগিতে সার্চ করা হচ্ছে। তেজগাঁও ফায়ার স্টেশনের ৩টি ইউনিট পুলিশ প্রোটেকশনে কাজ করে ৬টা ৪৫ মিনিটে আগুন নির্বাপণ করে।’ 

এ বিষয়ে তেজগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘ট্রেনটি নেত্রকোণা থেকে ঢাকায় আসছিল। বিমানবন্দর স্টেশন পার পর খিলক্ষেত এলাকায় পৌঁছালে যাত্রীরা পেছনের বগিতে আগুন দেখতে পান। পরে তারা চিৎকার করতে শুরু করেন। এরপর চালক ট্রেনটি তেজগাঁও স্টেশনে থামান।’

নিহত ৪ জনের মধ্যে দুজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তাঁরা হলেন—নাদিরা আক্তার পপি ও তাঁর ৩ বছরের ছেলে ইয়াসিন। 

পুড়ে যাওয়া মোহনগঞ্জ এক্সপ্রেস ট্রেনটিকে কমলাপুর স্টেশনে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। 

এর আগে, গত ১৩ ডিসেম্বর ভোর ৪টার দিকে গাজীপুরের ভাওয়ালে রেল স্টেশনের আউটার সিগন্যাল এলাকায় চিলাই ব্রিজের কাছে মোহনগঞ্জ এক্সপ্রেস ট্রেনের সাতটি বগি লাইনচ্যুত হয়। এতে একজন নিহত ও সাতজন আহত হয়। সেদিন গাজীপুর জেলা প্রশাসক আবুল ফাতেহ মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম বলেছিলেন, ‘নাশকতার উদ্দেশ্যে রেললাইন কেটে রাখার কারণে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। ৭টি বগি লাইনচ্যুত হয়েছে। পুরো ঘটনা তদন্তের জন্য জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *