দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন-সারা দেশে নৌকা-স্বতন্ত্র সংঘর্ষে আহত ৫৩

বাংলাদেশ

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে যশোর, নেত্রকোনা, রাজশাহী ও গাজীপুরে স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের ওপর হামলার অভিযোগ উঠেছে নৌকার সমর্থকদের বিরুদ্ধে। এ ছাড়া জয়পুরহাট ও জামালপুরে নৌকা এবং স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া, সংঘর্ষ ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। গত সোমবার বিকেলে ও গতকাল মঙ্গলবার এসব ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনায় এক স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ উভয় পক্ষের অন্তত ৫৩ জন নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন।

স্থানীয় সূত্র জানায়, যশোর-১ আসনে নেতা-কর্মীদের নিয়ে প্রচারের সময় গতকাল বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বেনাপোল বন্দরের ২ নম্বর ফটকের সামনে ট্রাক প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী আশরাফুল আলম লিটনের ওপর হামলা হয়। নৌকার প্রার্থী শেখ আফিল উদ্দীনের সমর্থকেরা এ হামলা করেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এতে আশরাফুল আলম লিটনসহ ছয়জন আহত হন। এ ঘটনায় স্থলবন্দরে এক ঘণ্টা পণ্য খালাস বন্ধ ছিল।

স্বতন্ত্র প্রার্থী আশরাফুল আলম লিটন আজকের পত্রিকাকে বলেন, সকালে তিনি সমর্থকদের নিয়ে চেকপোস্ট থেকে ভোট চাইতে বন্দরের সামনে গেলে ওত পেতে থাকা কয়েকজন শ্রমিক অতর্কিত হামলা চালান। তবে অভিযোগ ভিত্তিহীন দাবি করেছেন বেনাপোল বন্দর ৯২৫ শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ওহিদুজ্জামান ওহিদ।

যশোর জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বেলাল হোসেন বলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনী প্রচারে বাধার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে উভয় পক্ষের সঙ্গে কথা বলে পরিস্থিতি শান্ত করেছে।

এদিকে নেত্রকোনা-৩ (আটপাড়া-কেন্দুয়া) আসনে নৌকার প্রার্থী অসীম কুমার উকিলের সমর্থকদের বিরুদ্ধে স্বতন্ত্র প্রার্থী ইফতিকার উদ্দিন তালুকদার পিন্টুর কেন্দুয়া উপজেলার মাসকা বাজারে নির্বাচনী কার্যালয়ে হামলার অভিযোগ উঠেছে। এতে ১২ জনের বেশি আহত হয়েছেন। এ সময় সেখানে থাকা ১৩-১৪টি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়।

স্বতন্ত্র প্রার্থী ইফতিকার উদ্দিন তালুকদার পিন্টু বলেন, মাসকা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সালাম বাঙালির নেতৃত্বে অর্ধশতাধিক আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মী তাঁর নির্বাচনী কার্যালয়ে হামলা চালান। অভিযোগের বিষয়ে জানতে চেয়ারম্যান সালাম বাঙালির মোবাইলে ফোন করা হলে তাঁর কথা স্পষ্ট বোঝা যায়নি।

রাজশাহী-৪ (বাগমারা) আসনের চারটি স্থানে গতকাল স্বতন্ত্র প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হকের নির্বাচনী প্রচারগাড়ি ভাঙচুর এবং প্রচারকর্মীদের ওপর হামলা হয়েছে। চারটি ঘটনায় আহত হয়েছেন ১৮ জন। নৌকার প্রার্থী আবুল কালাম আজাদের কর্মীরা এসব ঘটনা ঘটিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় থানায় মামলাও হয়েছে। তবে আবুল কালাম আজাদ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

টঙ্গীর মাছিমপুর এলাকায় গতকাল বিকেলে পশ্চিম থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক দ্বীন মোহাম্মদ নীরবের নেতৃত্বে গাজীপুর-২ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী কাজী আলিম উদ্দিন বুদ্দিনের ট্রাক প্রতীকের অস্থায়ী কার্যালয় ভাঙচুর ও মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে দুজন আহত হয়েছেন। এ ব্যাপারে জানতে দ্বীন মোহাম্মদ নীরবের মোবাইল ফোনে কল করা হলেও সাড়া পাওয়া যায়নি।

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে দুপুরে প্রেসক্লাবসংলগ্ন প্রধান সড়কে নৌকার প্রার্থী মাহবুবুর রহমান হেলালের কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে স্বতন্ত্র প্রার্থী অধ্যক্ষ আব্দুর রশিদের সমর্থকদের পাল্টাপাল্টি ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের চারজন আহত হন। স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুর রশিদ বলেন, ‘নৌকার সমর্থকেরা আমার কর্মী মিঠুকে অতর্কিত হামলা চালিয়ে গুরুতর আহত করেন।’ তবে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মাহবুবুর রহমান হেলাল বলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থীর লোকজন পরিকল্পিতভাবে হামলা চালিয়েছে।

এদিকে প্রতীক বরাদ্দের পরই জয়পুরহাট-২ আসনে নৌকার প্রার্থী আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এবং একই দলের স্বতন্ত্র প্রার্থী গোলাম মাহফুজ চৌধুরীর  কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় থানায় পাল্টাপাল্টি দুটি মামলা হয়েছে। সংঘর্ষের ঘটনায় ১১ জন আহত হন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *