নিউজিল্যান্ড সিরিজেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে ভাবছেন হাথুরু  

ক্রিকেট ক্রীড়া জগত

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরু হতে বাকি নেই আর ছয় মাস সময়ও। আগামী বছরের জুনে শুরু হচ্ছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। বাংলাদেশ প্রধান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে যেন বিশ্বকাপকেই করেছেন ‘পাখির চোখ’।

২০২৩ সালে এরই মধ্যে বাংলাদেশের ওয়ানডে, টেস্ট দুই সংস্করণের খেলা শেষ হয়েছে। বাকি রয়েছে টি-টোয়েন্টি সংস্করণের ম্যাচ। নেপিয়ারে আগামীকাল শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি। সিরিজ। এ বছর এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ তিন সংস্করণ মিলে ৪৭ ম্যাচ খেলে জয় পেয়েছে ২৩ ম্যাচ। হেরেছে ২১ ম্যাচ ও ৩ ম্যাচ বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়েছে। যার মধ্যে সবচেয়ে দারুণ খেলেছে টি-টোয়েন্টি সংস্করণে। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে ১১ ম্যাচ খেলে বাংলাদেশ জিতেছে ৯ ম্যাচ ও হেরেছে ২ ম্যাচ। লিটন দাস, নাজমুল হোসেন শান্ত, তাসকিন আহমেদরা দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করেছেন।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তিন টি-টোয়েন্টির পর বাংলাদেশ বিশ্বকাপের আগে এই সংস্করণে আর বেশি ম্যাচ খেলার সুযোগ পাচ্ছে না। এছাড়া ২০ জানুয়ারি শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ১১ তম মৌসুম। বিপিএল শেষ হবে ১ মার্চ। সবকিছু মিলিয়ে বিশ্বকাপ সামনে রেখে গুছিয়ে ওঠার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন হাথুরু। নেপিয়ারে আজ সাংবাদিকদের বাংলাদেশ কোচ বলেন, ‘আমাদের হাতে ১১ ম্যাচ রয়েছে। একই সঙ্গে বিপিএল রয়েছে। জাতীয় দলে আমরা আমাদের সমন্বয় খোঁজার চেষ্টা করছি। বিশ্বকাপে কার কী ভূমিকা হবে, সেটা জানিয়ে দেওয়া হবে। এটাই আমাদের পরিকল্পনা।’

প্রায় দুই বছর পর নিউজিল্যান্ড সফর করছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। ২০২২-এর জানুয়ারিতে মাউন্ট মঙ্গানুই টেস্টে নিউজিল্যান্ডকে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। যা ছিল নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের মাঠে একমাত্র জয়। এরপর এবারের ওয়ানডে সিরিজে সাদা বলের ক্রিকেটে ডেডলক ভাঙে বাংলাদেশ। নেপিয়ারে গত ২৩ ডিসেম্বর তৃতীয় ওয়ানডেতে নিউজিল্যান্ডকে ৯ উইকেটে হারিয়েছে বাংলাদেশ। একই মাঠে আগামীকাল টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু হওয়ায় যেন আত্মবিশ্বাসী হাথুরুসিংহে। বাংলাদেশ কোচ বলেন, ‘আমাদের রেকর্ড সম্পর্কে জানি যে এখানে একটা টি-টোয়েন্টি ম্যাচও আমরা জিততে পারিনি। ওয়ানডে ক্রিকেটের জন্য ব্যাপারটা এমনই ছিল। তবে আমরা শেষ ম্যাচ জিতেছি।’

২০০৭ থেকে শুরু করে ২০২২ পর্যন্ত হয়েছে আটটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। বাংলাদেশ প্রতিটি বিশ্বকাপে খেলেছে ঠিকই। তবে সেমিফাইনালে কখনো খেলতে পারেনি। গতবার ১৫ বছর পর পেয়েছে বিশ্বকাপের মূল পর্বে জয়। সেমিফাইনাল খেলার আশা জাগিয়েও খেলা হয়নি বাংলাদেশের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *