জ্বলে উঠল অকল্যান্ডের আকাশ, সবার আগে ২০২৪-এ নিউজিল্যান্ড

আন্তর্জাতিক

নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে রোববার নিউজিল্যান্ডের অকল্যান্ড শহরের বিখ্যাত স্কাই টাওয়ারকে ঘিরে জড়ো হয়েছে কয়েক হাজার মানুষ। স্থানীয় সময় অনুযায়ী, ঘড়ির কাঁটা রাত ১২টার ঘরে পৌঁছাতেই স্কাই টাওয়ার থেকে আতশবাজির ছটায় উজ্জ্বল আলোয় ভরে উঠল অকল্যান্ডের আকাশ। সমস্বরে চিৎকার করে উঠল উপস্থিত মানুষেরাও। 

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিশ্বের প্রধান শহরগুলোর মাঝে নিউজিল্যান্ডের অকল্যান্ডেই সবার আগে নববর্ষ উদ্যাপন করা হয়। রোববার বাংলাদেশ সময় বিকেল ৫টার দিকেই নববর্ষ উদ্যাপন শুরু হয়ে যায় সেখানে। 

এদিকে, নিউজিল্যান্ডের পরই নববর্ষকে উদ্যাপনের প্রস্তুতি চলছিল অস্ট্রেলিয়ায়। দেশটির সিডনি শহরের হারবার ব্রিজ ও অপেরা হাউসকে ঘিরে প্রতিবছর এই উৎসবের আয়োজন করা হয়। এবারও ব্যতিক্রম হয়নি।

জানা গেছে, নতুন বছর উপলক্ষে এবার হারবার ব্রিজ ও অপেরা হাউস থেকে ৮ টন সমপরিমাণ আতশবাজি করা হবে। বলা যায়, নববর্ষ উপলক্ষে সিডনিতেই প্রতিবছর বিশ্বের সবচেয়ে বড় আতশবাজির আয়োজন করা হয়। তাই পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ থেকে সেখানে নববর্ষ উদ্যাপন করতে যান পর্যটকেরা। 

অপেরা হাউস এলাকায় জড়ো হওয়া পর্যটকদের একজন বিবিসিকে জানিয়েছেন, নববর্ষের আতশবাজিকে ভালো করে দেখার জন্য একটি সুবিধাজনক স্থান বেছে নিতে রোববার ভোর ৩টা থেকেই পরিবার নিয়ে তিনি সেখানে অবস্থান নিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আমরা হারবার ব্রিজের ঠিক সামনেই। আমাদের জন্য এটাই সবচেয়ে কাঙ্ক্ষিত স্থান। আমরা ফ্রান্স থেকে এসেছি। এই মুহূর্তটার জন্য অনেক দিন ধরে অপেক্ষা করছি। 

নিউজিল্যান্ড অস্ট্রেলিয়ার পর এশিয়ার দেশ জাপান, উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়ায় নববর্ষকে সাড়ম্বরে উদ্যাপন করা হবে। এভাবে চীন, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, হংকং ও ফিলিপাইনও অগ্রবর্তী দেশ হিসেবে নতুন বছরে পা রাখবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *