এবার ইসরায়েলকে হুমকি দিলো হিজবুল্লাহ প্রধান

আন্তর্জাতিক

লেবাননের সঙ্গে যুদ্ধ করলে তা ইসরায়েলের বিপর্যয়ের কারণ হয়ে উঠবে বলে মন্তব্য করেছেন লেবানন ভিত্তিক সশস্ত্র গোষ্ঠী হিজবুল্লাহর প্রধান হাসান নাসরুল্লাহ। বুধবার (৩ জানুয়ারি) দেয়া এক টিভি-ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, ‘যদি শত্রুপক্ষ আমাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে, তাহলে কোনোরকম সংযম না দেখিয়ে, কোনো নিয়ম না মেনে, কোনো বিধিনিষেধ না মেনে, সীমা হীনভাবে আমরা যুদ্ধে নেমে যাবো, আমরা যুদ্ধকে ভয় পাই না।’

রাজধানী বৈরুতে ইসরায়েলের ড্রোন হামলায় হামাস নেতা সালেহ আরৌরির মৃত্যুর পর ইসরায়েলকে এ হুমকি দেন নাসরুল্লাহ। আরৌরি হামাস ও হিজবুল্লাহের মধ্যে প্রধান যোগাযোগ স্থাপনকারী ছিলেন। খবর রয়টার্সের। 

প্রতিবেদনটিতে বলা হয়, হিজবুল্লাহকে ইতিমধ্যে জঙ্গি সংগঠন বলে ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি, ইসরায়েল ও অন্য কয়েকটি দেশ। ইসরায়েল এখনো ড্রোন হামলার বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কোন স্বীকারোক্তি দেয়নি। 

হিজবুল্লাহ নেতা জানিয়েছেন, আরৌরির মৃত্যু একটা ভয়ঙ্কর অপরাধ যা নিয়ে আমরা চুপ থাকতে পারি না। তিনি এর জন্য ইসরায়েলকে দায়ী করেছেন। গত ৭ অক্টোবর হামাসের আক্রমণের পর থেকে হিজবুল্লাহ এবং ইসরায়েল একাধিকবার একে অন্যের দিকে রকেট নিক্ষেপ করেছে।

এদিকে গাজা নিয়ে ২ ইসরায়েলি মন্ত্রীর মন্তব্যের সমালোচনা করেছে জার্মানি ও ফ্রান্স। ইসরায়েলি ওই ২ মন্ত্রী বলেছিলেন, ‘এই যুদ্ধের ফলে গাজা থেকে ফিলিস্তিনিদের অন্যত্র পুনর্বাসন করা হতে পারে।’ জার্মানির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, আমরা কঠোরতম ভাষায় ২ মন্ত্রীর বক্তব্য প্রত্যাখ্যান করছি। ফ্রান্সের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও বলেছে, ‘ওই ২ মন্ত্রীর বক্তব্য দায়িত্বজ্ঞানহীন এবং উত্তেজনা-সৃষ্টিকারী।’

অন্যদিকে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) পররাষ্ট্র নীতি বিষয়ক প্রধান জোসেপ বরেলও বলেছেন, ইসরায়েলের ২ মন্ত্রীর দেয়া বক্তব্য সম্পূর্ণই আন্তর্জাতিক আইন-বিরোধী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *